Home আইন আদালত শিশু ধর্ষণকারীকে কেন মৃত্যুদণ্ড দেয়া হবে না-হাইকোর্ট।
আইন আদালত - জানুয়ারি ১৯, ২০২০

শিশু ধর্ষণকারীকে কেন মৃত্যুদণ্ড দেয়া হবে না-হাইকোর্ট।

ডেস্ক সংবাদঃ

শিশু ধর্ষণকারীকে কেন মৃত্যুদণ্ড দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ এ রুল দেন।

এছাড়াও ধর্ষণ প্রতিরোধ, ধর্ষণের শিকার নারীদের সহায়তা এক মাসের মধ্যে একটি কমিশন গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

পাশাপাশি ধর্ষকের ডিএনএ ডেটাবেইজ তৈরি করে তা সংরক্ষণ করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, প্রতিটি জেলায় ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারের মাধ্যমে ভিকটিমকে সহায়তা দিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, ভিকটিমের ছবি গণমাধ্যমে প্রচার-প্রকাশের ক্ষেত্রে কেন সতর্কতা অবলম্বন করার নির্দেশ দেয়া হবে না- রুলে তাও জানতে চাওয়া হয়েছে।

এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি করে বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাই কোর্ট বেঞ্চ ১৯ জানুয়ারি, রবিবার এই রুল জারির পাশাপাশি অন্তবর্তীকালীন একটি নির্দেশনাও দিয়েছে।

আইন মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে এ কমিশনে চিকিৎসক, বিচারক, মানবাধিকার কর্মী, নারী অধিকার কর্মী, শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিকদের রাখতে বলা হয়েছে। 

ধর্ষণ প্রতিরোধে একটি সুপারিশমালা তৈরি করে আগামী ৬ মাসের মধ্যে তা আদালতে দাখিল করতে হবে এই কমিশনকে।

আইন, স্বাস্থ্য, স্বরাষ্ট্র ও মহিলা বিষয়ক সচিব, পুলিশের আইজিসহ মামলার সংশ্লিষ্ট বিবাদীদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ফুটপাত থেকে তুলে নিয়ে বিমানবন্দর সড়কের পাশের ঝোপে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরেএক ছাত্রীকে পাঁচ ঘণ্টা ধরে ধর্ষণের ঘটনার পর হাই কোর্টে এই রিট আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খন্দকার এম এস কাউসার।

ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে আইন প্রণয়ন ও ধর্ষণ প্রতিরোধে কমিশন গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয় কাউসারের আবেদনে।

রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী রাবেয়া ভূঁইয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

আইনজীবী খন্দকার এম এস কাউসার পরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘দেশব্যাপী ধর্ষণের ঘটনা বেড়েই চলেছে। সম্প্রতি দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীও ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। ক্রমবর্ধমান ধর্ষণের ঘটনা নাগরিক হিসেবে আর মেনে নেয়া খুবই কষ্টের। সংক্ষুব্ধ হয়েই ধর্ষণের প্রতিকারে এ রিট আবেদনটি করেছি।’

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

ভুল বিকাশ নম্বরে টাকা চলে গেলে। এ সমস্যায় পড়লে কী করবেন?

ডেস্ক সংবাদঃ দ্রুত সময়ে আর্থিক লেনদেন করার জন্য বিকাশ ব্যবহার করা হয়। কিন্তু অনেক সময় অ…