Home শিক্ষা ৩০৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে তলব।
শিক্ষা - নভেম্বর ১৫, ২০১৯

৩০৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে তলব।

শিক্ষা ডেস্কঃ

৩০৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে তলব করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই করতে তাদের তলব করা হয়েছে।

আগামী ১৮, ১৯, ২০ এবং ২১ নভেম্বর এসব শিক্ষককে এমপিও সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বোর্ডে আসতে বলা হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, আগামী ১৮ নভেম্বর ৮৬টি নিম্নমাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে, ১৯ নভেম্বর ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে, ২০ নভেম্বর ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে এবং ২১ নভেম্বর আরও ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে ঢাকা বোর্ডে আসতে বলা হয়েছে। নির্ধারিত দিনে সকাল ১০টায় ঢাকা বোর্ডে এমপিও সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে উপস্থিত থাকতে হবে নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া এসব প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষককে বোর্ডে উপস্থিত হতে বলা হয়েছে। একই সাথে প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা প্রকাশ করেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

এদিকে গত ১৪ নভেম্বর নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া ১ হাজার ৬৫০ স্কুল-কলেজের তথ্য পাঠাতে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। নতুন এমপিওভুক্ত হওয়া প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই-বাছাই করতে গঠিত কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের এসব তথ্য চাওয়া হয়েছে। আগামী ১৯ নভেম্বরের মধ্যে অধিদপ্তরে এসব প্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠাতে হবে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের।

এর আগে গত ১২ নভেম্বর নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া ১ হাজার ৬৫০ স্কুল ও কলেজর দেয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করতে ৭ সদস্যের কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. গোলাম ফারুককে। ২০ কর্মদিবসের মধ্যে তারা সঠিকতা যাচাই করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠাবে। গত ২৩ অক্টোবর প্রকাশিত এমপিও তালিকায় স্থান পাওয়া এক হাজার ছয়শ পঞ্চাশটি স্কুল ও কলেজের তথ্য যাচাইয়ে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একজন উপযুক্ত প্রতিনিধিকেও রাখা হয়েছে কমিটিতে।

গত ২৩ অক্টোবর নতুন এমপিওভুক্ত ১ হাজার ৬৫০ স্কুল-কলেজের তালিকা প্রকাশ করা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয় ৪৩৯টি, ৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণির মাধ্যমিক বিদ্যালয় ১০৮টি, ৯ম-১০ম শ্রেণির মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৮৮৭টি, স্কুল অ্যান্ড কলেজ ৬৮টি, উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ ৯৩টি এবং ডিগ্রি কলেজ ৫৬টি। ৪টি শর্তে প্রতিষ্ঠানের এমপিও কার্যকর করা হবে বলে জানানো হয়েছিল আদেশে। একটি শর্তে বলা হয়, যেসব তথ্যের আলোকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এমপিওভুক্ত করা হয়েছে, পরবর্তী সময়ে কোনো তথ্য ভুল বা অসত্য হলে তথ্য দেয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তথ্যের সঠিকতা সাপেক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তি আদেশ কার্যকর হবে।

15 Shares

৩০৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে তলব করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই করতে তাদের তলব করা হয়েছে।

আগামী ১৮, ১৯, ২০ এবং ২১ নভেম্বর এসব শিক্ষককে এমপিও সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বোর্ডে আসতে বলা হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, আগামী ১৮ নভেম্বর ৮৬টি নিম্নমাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে, ১৯ নভেম্বর ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে, ২০ নভেম্বর ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে এবং ২১ নভেম্বর আরও ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে ঢাকা বোর্ডে আসতে বলা হয়েছে। নির্ধারিত দিনে সকাল ১০টায় ঢাকা বোর্ডে এমপিও সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে উপস্থিত থাকতে হবে নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া এসব প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষককে বোর্ডে উপস্থিত হতে বলা হয়েছে। একই সাথে প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা প্রকাশ করেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

এদিকে গত ১৪ নভেম্বর নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া ১ হাজার ৬৫০ স্কুল-কলেজের তথ্য পাঠাতে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। নতুন এমপিওভুক্ত হওয়া প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই-বাছাই করতে গঠিত কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের এসব তথ্য চাওয়া হয়েছে। আগামী ১৯ নভেম্বরের মধ্যে অধিদপ্তরে এসব প্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠাতে হবে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের।

এর আগে গত ১২ নভেম্বর নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া ১ হাজার ৬৫০ স্কুল ও কলেজর দেয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করতে ৭ সদস্যের কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. গোলাম ফারুককে। ২০ কর্মদিবসের মধ্যে তারা সঠিকতা যাচাই করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠাবে। গত ২৩ অক্টোবর প্রকাশিত এমপিও তালিকায় স্থান পাওয়া এক হাজার ছয়শ পঞ্চাশটি স্কুল ও কলেজের তথ্য যাচাইয়ে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একজন উপযুক্ত প্রতিনিধিকেও রাখা হয়েছে কমিটিতে।

গত ২৩ অক্টোবর নতুন এমপিওভুক্ত ১ হাজার ৬৫০ স্কুল-কলেজের তালিকা প্রকাশ করা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয় ৪৩৯টি, ৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণির মাধ্যমিক বিদ্যালয় ১০৮টি, ৯ম-১০ম শ্রেণির মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৮৮৭টি, স্কুল অ্যান্ড কলেজ ৬৮টি, উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ ৯৩টি এবং ডিগ্রি কলেজ ৫৬টি। ৪টি শর্তে প্রতিষ্ঠানের এমপিও কার্যকর করা হবে বলে জানানো হয়েছিল আদেশে। একটি শর্তে বলা হয়, যেসব তথ্যের আলোকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এমপিওভুক্ত করা হয়েছে, পরবর্তী সময়ে কোনো তথ্য ভুল বা অসত্য হলে তথ্য দেয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তথ্যের সঠিকতা সাপেক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তি আদেশ কার্যকর হবে।

15 Shares

৩০৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে তলব করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই করতে তাদের তলব করা হয়েছে।

আগামী ১৮, ১৯, ২০ এবং ২১ নভেম্বর এসব শিক্ষককে এমপিও সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বোর্ডে আসতে বলা হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, আগামী ১৮ নভেম্বর ৮৬টি নিম্নমাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে, ১৯ নভেম্বর ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে, ২০ নভেম্বর ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে এবং ২১ নভেম্বর আরও ৭৪টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষককে ঢাকা বোর্ডে আসতে বলা হয়েছে। নির্ধারিত দিনে সকাল ১০টায় ঢাকা বোর্ডে এমপিও সংক্রান্ত কাগজপত্র নিয়ে উপস্থিত থাকতে হবে নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া এসব প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষককে বোর্ডে উপস্থিত হতে বলা হয়েছে। একই সাথে প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা প্রকাশ করেছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

এদিকে গত ১৪ নভেম্বর নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া ১ হাজার ৬৫০ স্কুল-কলেজের তথ্য পাঠাতে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। নতুন এমপিওভুক্ত হওয়া প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই-বাছাই করতে গঠিত কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের এসব তথ্য চাওয়া হয়েছে। আগামী ১৯ নভেম্বরের মধ্যে অধিদপ্তরে এসব প্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠাতে হবে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের।

এর আগে গত ১২ নভেম্বর নতুন এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান পাওয়া ১ হাজার ৬৫০ স্কুল ও কলেজর দেয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করতে ৭ সদস্যের কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. গোলাম ফারুককে। ২০ কর্মদিবসের মধ্যে তারা সঠিকতা যাচাই করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠাবে। গত ২৩ অক্টোবর প্রকাশিত এমপিও তালিকায় স্থান পাওয়া এক হাজার ছয়শ পঞ্চাশটি স্কুল ও কলেজের তথ্য যাচাইয়ে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একজন উপযুক্ত প্রতিনিধিকেও রাখা হয়েছে কমিটিতে।

গত ২৩ অক্টোবর নতুন এমপিওভুক্ত ১ হাজার ৬৫০ স্কুল-কলেজের তালিকা প্রকাশ করা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয় ৪৩৯টি, ৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণির মাধ্যমিক বিদ্যালয় ১০৮টি, ৯ম-১০ম শ্রেণির মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৮৮৭টি, স্কুল অ্যান্ড কলেজ ৬৮টি, উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ ৯৩টি এবং ডিগ্রি কলেজ ৫৬টি। ৪টি শর্তে প্রতিষ্ঠানের এমপিও কার্যকর করা হবে বলে জানানো হয়েছিল আদেশে। একটি শর্তে বলা হয়, যেসব তথ্যের আলোকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এমপিওভুক্ত করা হয়েছে, পরবর্তী সময়ে কোনো তথ্য ভুল বা অসত্য হলে তথ্য দেয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তথ্যের সঠিকতা সাপেক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তি আদেশ কার্যকর হবে।

15 Shares

Share Button

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

ঢাকা পর্বে দুর্দান্ত খেলে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানে আছে রাজশাহী রয়্যালস।

খেলা ডেস্কঃ শেষ হয়ে গেলো বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ঢাকা পর্ব। ১১ ডিসেম্বর মাঠে গড়ানো ঢাকা পর্ব&…